বাইকের ইঞ্জিন অয়েল ও কিছু অতি জরুরী বিষয়

আমরা সবাই বাইকের ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করি, কিন্ত কিছু অতি জরুরী বিষয় হয়তো অনেকেই জানিনা , তা হলো, ইঞ্জিন অয়েল চেঞ্জ করার সময় ফিলার গজ ফলো করুন, যদি ফিলার গজ না থাকে সেক্ষেত্রে ইউজার ম্যানুয়াল বা ইঞ্জিন থেকে ইঞ্জিন অয়েল ভলিউম ফলো করুন, অর্থাত আমি বোঝাতে চাইছি, সব বাইকের ইঞ্জিনে একই পরিমান ইঞ্জিন অয়েল নিতে পারেনা, কিছু বাইকে ৯০০ মিলি লিটার/কিছু বাইকে ১০০০ মিলি লিটার আবার কিছু বাইকে ১২০০/১৫০০ মিলি লিটার অয়েল দিতে হয়। তাই কোন বাইকের ইঞ্জিনে কতটা অয়েল লাগে সেটা অবশ্যই জেনে নেবেন, কেননা সঠিক মাপ এর চেয়ে ৫০/১০০ এম এল অয়েল কম থাকলে ক্ষতি নেই তবে যদি আপনি মাপ এর চেয়ে বেশি অয়েল ইঞ্জিনে দেন তবে তা আপনার বাইকের ইঞ্জিনের অয়েলসীল গুলো নষ্ট করে দিতে পারে যা রিপেয়ার করা খুব দুরহ ও ব্যায়বহল ব্যাপার। প্রতি ৯০০/১০০০ কি.মি পর পর ইঞ্জিন অয়েল এবংপ্রতি ৩ হাজার কিলোমিটার পর পর ইঞ্জিন অয়েল ফিল্টার চেঞ্জ করুন ।

আরেকটা জিনিস সবসময় খেয়াল রাখবেন, ড্রেইন নাট যেন সঠিক যন্ত্র দিয়ে সতর্কতার সাথে খোলা এবং লাগানো হয়, কারন ড্রেইন নাট নষ্ট হলেও আপনাকে দুর্ভোগ পোহাতে হবে ।

ম্যানুফ্যাকচার এর রিকমেন্ডেশন অনুযায়ী সঠিক গ্রেড ও ভালো ব্রান্ডের ইঞ্জিন অয়েল ব্যাবহার করুন ।

আপনার প্রিয় বাইকের ইঞ্জিন দীর্ঘস্থায়ী হোক এই কামনায় আজ এখানেই শেষ করছি ।ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন.ভালো লাগলে শেয়ার করুন ।

 

আপনার কোন প্রস্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার রাইডার বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

-BikeGuy Advertisement-